সুনামগঞ্জ জেলায় বন্যার সতর্কবার্তা জারি

সুনামগঞ্জে বন্যা পরিস্থিতির অবনতি

 সুনামগঞ্জ জেলায় উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে নদ নদীর পানি বেড়ে ইতিমধ্যেই দুই উপজেলার নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। তাছাড়া, আগামী দুই দিন সুনামগঞ্জ ও ভারতের মেঘালয়ে ভারী বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা থাকায় বন্যা সতর্কতা জারি করেছে সুনামগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ড।

পানি উন্নয়ন বোর্ডের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, "ভারতের মেঘালয়ে ভারী বর্ষণ হওয়ার সম্ভাবনা থাকায় সুনামগঞ্জের সকল নদ-নদী ও হাওরের পানি বৃদ্ধি পেয়ে বন্যা পরিস্থিতির সম্ভাবনা রয়েছে। তবে সুনামগঞ্জে নদ-নদীর পানি বিপদ সীমার ১৫ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।"

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, কয়েকদিনের টানা বর্ষণে তাহিরপুর ও বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার বেশ কিছু নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। দুই উপজেলাতেই বেশ কিছু বাড়িঘর স্রোতে ভেঙে গেছে এবং গত এক সপ্তাহ রোদ না থাকায় মাড়াই করা ধান শুকাতে পারছেন না হাওরের কৃষকরা। ধান শুকাতে না পারায় অধিকাংশ ধানে অঙ্কুর জন্মে পাকা ধান পচে নষ্ট হচ্ছে। 

কৃষক আবুল লেইছ মিয়া বলেন, ঢলের পানির মধ্যে কিছু কিছু ধান কেটে এনেছেন এবং কিছু ধান লোকের অভাবে তলিয়ে গেছে। এখন সেই ধানও রোদের অভাবে শুকাতে পারছেন না। চারপাশে পানি থাকায় নিজের দুটো গরু নিয়েও বিপাকে পড়েছেন তিনি।

সুনামগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী জহিরুল ইসলাম বলেন, সুনামগঞ্জ ও মেঘালয়ে ভারী বর্ষণের কারণে বন্যা সতর্কতা জারি করা হয়েছে। ইতোমধ্যে সুনামগঞ্জের নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে।

নবীনতর পূর্বতন