কিভাবে ফ্রিল্যান্স গ্রাহক খুঁজে পাওয়া যায়

গ্রাহক তৈরী করা

 একজন ফ্রিল্যান্সার হিসাবে ক্যারিয়ার গড়ার জন্য হয়তো আপনার প্রতিভা এবং দক্ষতা রয়েছে।  তবে, একজন সফল ফ্রিল্যান্সার হওয়ার সবচেয়ে কঠিন অংশটি আসলে ফ্রিল্যান্স গ্রাহকদের (ক্লায়েন্ট) সন্ধান করা। চাপ নেয়ার দরকার নেই, আপনার সমস্যাটির অনেকগুলি সহজলভ্য এবং ব্যবহারিক উপায় রয়েছে। আজকের আর্টিকেলে আমরা আলোচনা করবো " কিভাবে ফ্রিল্যান্স গ্রাহক খুঁজে পাওয়া যায় "

আপনার পরিচিত লোকদের দিয়ে শুরু করুন

ফ্রিল্যান্স ক্লায়েন্টদের খোঁজার সর্বোত্তম উপায় হল আপনার ইতিমধ্যেই পরিচিত লোকদের সাহায্য নেওয়া।  আপনি হয়তো কখনোই চিন্তা করেন না যে, আপনার কাছে ইতিমধ্যেই সম্ভাব্য ক্লায়েন্টদের একটি গ্রুপ রয়েছে। পরিবার, বন্ধুবান্ধব, পুরানো সহপাঠী, প্রাক্তন ব্যবসায়িক পরিচিতি- এরা সকলেই আপনার ঐ সব লোক যাদের আপনার ফ্রিল্যান্স সেবার প্রয়োজন হতে পারে বা নতুন কারো সাথে আপনাকে পরিচয় করিয়ে দিতে পারে এবং এভাবে আপনি পেয়ে যেতে পারেন আপনার কাঙ্খিত ফ্রিল্যান্স গ্রাহক (ক্লায়েন্ট)। 

আপনার পরিবারের সকল সদস্য এবং বন্ধুদের জানিয়ে দিন যে, আপনি একটি ফ্রিল্যান্স ক্যারিয়ার শুরু করেছেন।  তাদের কোন লেখা, ডিজাইনিং, ওয়েব ডেভেলপমেন্ট তথা আপনার সেবার  প্রয়োজন আছে কি না তাদের জানতে চান এবং তাদের বন্ধুদেরও আপনার ফ্রিল্যান্সিং সেবার কথা জানিয়ে দিতে বলুন।

আপনি যদি তাদের না বলেন যে আপনি ফ্রিল্যান্সিং কাজ খুঁজছেন তবে ঐ ভদ্রলোক কীভাবে জানবেন যে আপনার জন্য তাঁর কাছে কাজ ছিলো বা সেই লোক আপনার সাথে চুক্তিভিত্তিক কাজ করতে আগ্রহী। 

 প্রাক্তন সহকর্মী এবং বস

প্রাক্তন সহকর্মীদের জানতে দিন যে আপনি ফ্রিল্যান্স কাজ খুঁজছেন এবং তাদের আপনার ফ্রিল্যান্সিং সেবার কথা অন্যদের জানাতে বলুন। অবশ্যই আপনার পুরানো বসের সাথে যোগাযোগ করতে ভুলবেন না - বিশেষ করে যদি তাদের সাথে আপনার ভাল সম্পর্ক থাকে।  তারা আপনার জন্য কোন ফ্রিল্যান্স জব দিতে পারেন কিনা অথবা আপনার ফ্রিল্যান্স ক্লায়েন্টদের খোঁজার জন্য তাদের কোনো পরামর্শ আছে কিনা জানতে চান। যখন তারা জানবে যে আপনি ফ্রিল্যান্সিং করছেন, তখন তারা আপনাকে একটি প্রজেক্টের জন্য ঘটনাস্থলে হয়তো নিয়োগও করতে পারে। এতে আপনার সুবিধাটা হচ্ছে, আপনি তাদের ব্যবসার সাথে পরিচিত এবং তারা ইতিমধ্যেই জানেন আপনি কতটা দুর্দান্ত।

আপনার জীবনে আসা সকল মানুষকে মনে রাখুন

আপনার হেয়ারড্রেসার তার নিজস্ব ব্যবসা চালায়, তাহলে তার অ্যাপয়েন্টমেন্ট কার্ড ডিজাইন করার জন্য তার কারো প্রয়োজন কিনা জিজ্ঞাসা করবেন না কেন?  যখন আপনার বাসার রং মিস্ত্রি  আপনার দেয়াল রং করছেন, তখন আপনি জীবিকার জন্য কী করেন তা উল্লেখ করুন।  দেয়াল পেইন্টিং এর জন্য তার একটি ডিজাইন লাগতে পারে।  আপনি কখনই জানেন না যে, আপনি ফ্রিল্যান্স ক্লায়েন্টদের ঠিক কোথায় খুঁজে পেতে পারেন।

আপনি জিজ্ঞাসা না করা পর্যন্ত তাদের আপনার পরিষেবার প্রয়োজন কিনা তা আপনি কখনই জানতে পারবেন না।  এমনকি যদি তাদের এখনই ফ্রিল্যান্স কাজ করার প্রয়োজন না হয়, তবে তারা এমন কাউকে চিনতে পারে যাদের প্রয়োজন আছে।

আপনার জন্য সুপারিশ (রিকমেন্ডেশন) করতে বলুন

একবার আপনি কারও জন্য কাজ করে দিলে, তাদের পরিচিতিদের আপনাকে সুপারিশ করতে বলুন। প্রায়ই সন্তুষ্ট কাস্টমারের রিকমেন্ডেশনে নতুন ফ্রিল্যান্স গ্রাহক পাওয়া যায়।

একটি পোর্টফোলিও তৈরী করুন

আপনার কাজের ব্যাপারে চমৎকার ভাবে ধীরে সুস্থে একটি পোর্টফোলিও তৈরি করুন। নিশ্চিত করুন যে, পোর্টফোলিও টিকে যেন আপনার ওয়েবসাইটের একটি অনলাইন লিঙ্কের মাধ্যমে বা একটি পিডিএফ ফরমেট আকারে ইমেলের মাধ্যমে ক্লায়েন্টদের দ্বারা সহজেই অ্যাক্সেস করা যায়। আপনার সেরা কাজগুলো ক্রমাগত আপনার পোর্টফোলিওতে আপডেট করুন। 

 আপনার পোর্টফোলিওতে কী অন্তর্ভুক্ত করবেন?

👉আপনি যা করেন সেই সম্পর্কে স্পষ্টভাবে বলুন: 

"ফ্রিল্যান্স রাইটার" এর মতো একটি সাধারণ শব্দ ব্যবহার করার পরিবর্তে "স্পিচরাইটার" বা "মার্কেটিং কপিরাইটার" এর মতো শিরোনাম ব্যবহার করে আপনার ফ্রিল্যান্স গ্রাহকদের আরো সুনির্দিষ্ট ভাবে আকৃষ্ট করুন।

👉আপনার সেরা কাজ অন্তর্ভুক্ত করুন:

 আপনি যে কাজের জন্য আবেদন করছেন তার সাথে আপনার সেরা কাজটিও হাইলাইট করুন। আপনি কীভাবে সফলতা পেয়েছেন তা সংক্ষেপে বর্ণনা করুন। 

আপনি যদি নতুন হয়ে থাকেন এবং দেখানোর জন্য তেমন কাজ না থাকে, সেক্ষেত্রে ফ্রিল্যান্স ক্লায়েন্ট পেতে আপনার নিজের থেকে কিছু দুর্দান্ত কাজ তৈরি করুন।

👉সন্তুষ্ট ফ্রিল্যান্স ক্লায়েন্টদের কাছ থেকে প্রশংসাপত্র জোগাড় করুন: 

আপনার ক্লায়েন্টদের আপনার কাজের ব্যাপারে ভালো মন্তব্য করার জন্য রিকুয়েষ্ট করুন।

👉আপনার সাম্প্রতিক জীবনবৃত্তান্ত সংযুক্ত করুন: 

কোনো কোম্পানি যখন ফ্রিল্যান্সারদের নিয়োগ দেয় তখন ফাইলে একটি জীবনবৃত্তান্তের (সিভি) প্রয়োজন হয়।  অতীতে আপনার অবস্থান সম্ভাব্য ক্লায়েন্টদের দৃষ্টিতে আপনার অভিজ্ঞতা এবং দক্ষতা বৃদ্ধিতে সাহায্য করে।

👉কেস স্টাডির একটি নমুনা তৈরী করে রাখুন: 

কখনও কখনও একজন ক্লায়েন্ট আপনি যা করেছেন তার চেয়ে আরও বেশি কিছু জানতে চান। তারা কখনো কখনো জানতে চায় যে, আপনি কীভাবে কাজটি করেছেন।  একটি কাজ শেষ করার পরে দ্রুত কেস স্টাডি লেখার অভ্যাস করুন।  এইভাবে আপনার পোর্টফোলিও অধিক গ্রহনযোগ্যতা অর্জন করবে।

👉 আপনার সাথে যোগাযোগের মাধ্যম আপ টু ডেট রাখুন: 

সম্ভাব্য ক্লায়েন্টদের কাজের জন্য আপনাকে খুঁজে পাওয়া যতটা সম্ভব সহজ করুন!

👉আপনার সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করুন

যখন ক্লায়েন্টরা ফ্রিল্যান্সারদের সন্ধান করে, তখন সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে তারা আপনার ব্যাপারে জানতে পারে। সেজন্য সোশ্যাল মিডিয়ায় নিজেকে চমৎকারভাবে উপস্থাপন করা গুরুত্বপূর্ণ। 

লিংকডইন - ফেসবুক - টুইটার - ইন্সটাগ্রামে নিজের কাজের ব্যাপারে চমৎকার প্রোফাইল তৈরী করুন। বিভিন্ন গ্রুপ ও পেজে নিজেকে তুলে ধরো। তবে, অবশ্যই নিশ্চিত করতে হবে যেন প্রোফাইলের কোথাও কোনো বাজে মন্তব্য না থাকে। সোশ্যাল মিডিয়ায় নেটওয়ার্ক গড়ে তুলুন 

👉বিশেষ নেটওয়ার্কিং ইভেন্ট

বিশেষ নেটওয়ার্কিং ইভেন্টে জীবিকার জন্য আপনি কী করেন সে সম্পর্কে কথা বলা সবসময়ই উচিত। আপনার পেশায় এমন কোনও সংস্থা আছে কিনা তা খুঁজে বের করুন যারা ব্যক্তিগত ইভেন্টগুলি হোস্ট করে যেখানে বহু ক্লায়েন্ট এবং ফ্রিল্যান্সাররা একত্রিত হয়। অনলাইনে একজন ক্লায়েন্টের সাথে দেখা করার চেয়ে মুখোমুখি মিটিং সবসময়ই বেশি কার্যকর।

আপনি ফ্রিল্যান্সারদের সাথে সম্পর্ক তৈরী করে ক্লায়েন্টদের একে অপরের কাছে রেফার করতে পারেন এবং একে অপরকে ব্যক্তিগত পরিচিতির নেটওয়ার্ক প্রসারিত করতে সহায়তা করতে পারেন।

একই ফ্রিল্যান্সিং পেশার লোককে প্রতিযোগি ভাববেন না এবং তাদের সম্পর্ক তৈরী করুন। অন্যের পরামর্শের জন্য জিজ্ঞাসা করুন এবং অন্যদের কাছ থেকে যতটা সম্ভব শিখুন।  জ্ঞানই শক্তি! নিজেকে একজন বিশেষজ্ঞ হিসাবে সেট আপ করুন।

👉ইভেন্টে কথা বলুন: 

ব্যবসায়িক কনফারেন্সে কথা বলা আপনার দক্ষতা দেখানোর পাশাপাশি সম্ভাব্য ক্লায়েন্টদের একটি নতুন গ্রুপের সাথে নেটওয়ার্ক তৈরী করার সুযোগ করে দেয়।

👉একটি ব্লগ শুরু করুন: 

আপনার কাজের ক্ষেত্রে প্রবণতা, আলোচিত বিষয় এবং আকর্ষণীয় উন্নয়ন সম্পর্কে আপনার বিশেষ জ্ঞান আছে, তাহলে কেন আপনার অভিজ্ঞতা অন্যদের সাথে ভাগ করবেন না?  আপনি যদি একটি তথ্যপূর্ণ এবং বিনোদনমূলক ব্লগ লিখতে পারেন, তবে আপনি আপনার ক্ষেত্রে একজন নেতা হিসাবে নিজেকে বিবেচনা করতে পারেন।  নিশ্চিত করুন যে, আপনি এমন বিষয়গুলি সম্পর্কে লিখেছেন যা আপনার সম্ভাব্য ক্লায়েন্টদের জন্য উপযোগী হবে এবং ব্যাখ্যা করুন যে, আপনি কীভাবে একজন ফ্রিল্যান্সার হিসাবে তাদের সাহায্য করতে পারেন।

👉ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসঃ

অনেক বড় বড় কোম্পানিও প্রায়ই ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস থেকে কর্মী ভাড়া করে থাকে। এখানে অসংখ্য ক্লায়েন্ট প্রতিনিয়ত ভীড় জমায়। নিম্নে প্রধান চারটি জনপ্রিয় ওয়েবসাইট সম্পর্কে সংক্ষিপ্ত আলোচনা করা হয়েছে:

আপওয়ার্ক

ফ্রিল্যান্স ওয়েবসাইট গুলোর মধ্যে আপওয়ার্ক সবচেয়ে সুপরিচিত। এখানে প্রতিদিন প্রায় ৮০০০ নতুন চাকরি পোস্ট করা হয়ে থাকে এবং এটি বিশ্বের ফ্রিল্যান্সারদের বৃহত্তম নেটওয়ার্ক।

যদিও Upwork-এ যুক্ত হতে কোনো টাকা-পয়সা লাগেনা তবে এখানে কাজ করে টাকা ইনকাম করলে মোট আয়ের ৫℅-২০℅ ফি প্রদান করতে হয়।

ফাইবার

ফাইবার বর্তমান সময়ে বহুল আলোচিত একটি বিশ্বস্ত ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস যেখানে সকল সেবা দাতার জন্যে রয়েছে অফুরন্ত সুযোগ। আপনি চাইলেই খুব সহজে ফ্রিতে একটি প্রোফাইল ও গিগ তৈরী করে কাজ শুরু করতে পারেন। তবে এখানেও আপনাকে কোম্পানিকে ট্যাক্স দিতে হবে। 

ফ্রিল্যান্সার

ফ্রিল্যান্সারে হাই-প্রোফাইল ক্লায়েন্ট এবং ১৮০০ টিরও বেশি ফ্রিল্যান্স বিভাগ রয়েছে। তবে ফ্রিল্যান্সারে কাজ করতে কিছু জটিলতাও পোহাতে হয়। যদিও কোম্পানি আপনাকে ফ্রিতে সাইন আপ ও প্রোফাইল তৈরীর সুযোগ দেয় তবে আপনি প্রতি মাসে শুধুমাত্র ছয়টি প্রকল্পে বিড করতে পারেন।  আপনি যদি আরও বেশি পরিমাণ বিড করতে চান, তবে আপনাকে একটি ফি দিতে হবে বা একটি মাসিক সদস্যতার জন্য সাইন আপ করতে হবে, যা $1.10 থেকে $89.95 পর্যন্ত হতে পারে।

শিখতে থাকুন এবং আপনার দক্ষতার মানোন্নয়ন করুন

ফ্রিল্যান্স ক্লায়েন্ট পাওয়ার সেরা উপায় গুলির মধ্যে একটি হল আপনি যা করেন তাতে আরও দক্ষ হওয়া। প্রয়োজনে আপনি কিছু বিশেষ কোর্স গ্রহন করতে পারেন। সত্যি বলতে অভিজ্ঞতার কোনো বিকল্প নাই।

 কিভাবে ইমেইলের মাধ্যমে প্রসার ঘটাবেন?

একটি স্পষ্ট বক্তব্যের মাধ্যমে আপনি তাদের জানান যে, আপনি কে আর আপনি কি করেন এবং কিভাবে আপনি তাদের ব্যবসার সমস্যা সমাধানে সাহায্য করতে পারেন!

আপনার ক্লায়েন্টের জন্য বিশেষভাবে তৈরি করা লিঙ্কটি পোর্টফোলিওতে যুক্ত করুন। যদি সম্ভব হয় তবে একই ধরনের ক্লায়েন্টের কাছ থেকে প্রশংসাপত্র যুক্ত করুন।

একটি বন্ধুত্বপূর্ণ বিবৃতি দিয়ে শেষ করে একটি ফলো-আপ মিটিংয়ের অনুরোধ করুন, "আসুন আগামী কয়েক সপ্তাহের মধ্যে একটি কলের সময় নির্ধারণ করি এবং আলোচনা করি যে, আমি কীভাবে আপনার কোম্পানিকে লক্ষ্য পূরণে সাহায্য করতে পারি"।

আপনি যদি পরবর্তী কয়েক সপ্তাহের মধ্যে রিপ্লাই না পান, সেক্ষেত্রে তারা আপনার ইমেল পেয়েছে কিনা তা দেখতে আরেকটি ইমেল দ্রুতই পাঠান।

হাল ছাড়বেন না। ক্লায়েন্টকে ইমেল করার আগে যৌক্তিকতা সম্পর্কে চিন্তা করুন। যেমনঃ "আমি আপনাকে জানাতে চেয়েছিলাম যে, আমি এই সপ্তাহের সোম থেকে শুক্রবার ছুটিতে থাকবো। কিন্তু আপনি যদি আমার সম্পর্কে আরও জানতে চান তবে আমি আগামী সপ্তাহের যে কোনও সময় ফ্রি থাকবো।"

আপনি পরিবার এবং বন্ধুদের সাথে যোগাযোগ করুন, ব্যক্তিগতভাবে নেটওয়ার্কিং ইভেন্টগুলিতে যান, একটি ফ্রিল্যান্স মার্কেটপ্লেসে যোগদান করুন বা আপনি কীভাবে আপনার দক্ষতা সর্বোত্তমভাবে প্রদর্শন করতে পারেন তা নিয়ে ভাবুন এবং সম্ভাব্য ক্লায়েন্টদের দেখান যে, আপনি কীভাবে তাদের  সমস্যার সমাধান করে কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্যে পৌঁছাতে সহায়তা করতে পারেন। আশা করি, ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ারে আপনার সফলতা খুব বেশি দূরে নয়।

আজকের আলোচনায় আমরা যা জানলামঃ কিভাবে ফ্রিল্যান্স গ্রাহক খুঁজে পাওয়া যায়, একজন সফল ফ্রিল্যান্সার হওয়ার জন্য কি কি উপায় অনুসরণ করা উচিত এবং কি উপায়ে নিজের দক্ষতার মানোন্নয়ন করা যায়।

আর্টিকেলটি ভালো লাগলে অবশ্যই বন্ধুদের সাথে শেয়ার করবেন।

নবীনতর পূর্বতন