সুনামগঞ্জে উজির মিয়ার মৃত্যুর ঘটনায় দুই এসআই'র বিরুদ্ধে মামলা

 

নিহত উজির মিয়া

সুনামগঞ্জের শান্তিগঞ্জ উপজেলায় পুলিশের নির্যাতনে উজির মিয়ার মৃত্যুর ঘটনায় আদালতে পুলিশের দুই এসআই’র বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। গতকাল সোমবার দুপুরে নিহতের ভাই ডালিম মিয়া বাদী হয়ে জেলা ও দায়রা জজ ওয়াহিদুজ্জামান শিকদারের আদালতে এ মামলা দায়ের করেন।

শন্তিগঞ্জ থানার সাবেক-প্রত্যাহারকৃত এসআই দেবাশীষ সূত্রধর এবং ওই থানার এস আই আলাউদ্দিনকে মামলায় আসামী করা হয়েছে।

সুনামগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি ও বাদী পক্ষের আইনজীবী রবিউল লেইছ রোকেশ বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, আদালত আগামী বুধবার আদেশের দিন ধার্য্য করেছেন।

জানা যায়, গত ৯ ফেব্রুয়ারি রাতে পুলিশ উজির মিয়াকে গরু চুরির অভিযোগে গ্রেফতার করে শান্তিগঞ্জ থানা পুলিশ। গ্রেফতারের সময় এসআই দেবাশীষ সূত্রধর, এসআই পার্ডন কুমার সিংহ ও এএসআই আক্তারুজ্জামানসহ পুলিশ সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন। এই তিন পুলিশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে উজির মিয়াকে মারধরের অভিযোগ এনেছেন নিহতের পরিবার। এর মধ্যে এসআই দেবাশীষ সূত্রধরের বিরুদ্ধে থানায় নিয়ে উজির মিয়াকে অমানুষিকভাবে নির্যাতনের অভিযোগ ওঠে।

অসুস্থ উজির মিয়াকে সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে চিকিৎসা দিয়ে ১০ ফেব্রুয়ারি আদালতে হাজির করা হয়। আদালত থেকে জামিন নিয়ে ওই দিনই সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা নেন উজির মিয়া। বাড়ি ফিরলেও ২১ ফেব্রুয়ারি আবার অসুস্থবোধ করলে সকালে তাকে স্থানীয় কৈতক হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। এরপর তার লাশ সড়কে রেখে অবরোধে নামেন স্বজনসহ হাজারও মানুষ। গত ২১ ফেব্রুয়ারি ৩ ঘণ্টারও বেশি সময় সুনামগঞ্জ-সিলেট সড়ক অবরোধ করে রাখেন তারা। পরে জেলা প্রশাসন ও পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের আশ্বাসে অবরোধ তুলে নেন এলাকাবাসী। 

উজির মিয়ার পরিবার ও স্বজনদের অভিযোগ করেন, থানায় নিয়ে বেধড়ক মারপিটের কারণে মৃত্যু হয়েছে তার। এ ঘটনায় জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনের দুটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। তবে তদন্ত কমিটির পক্ষ থেকে এখনও তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেওয়া হয়নি। এরই মধ্যে রোববার নতুন আরেকটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

নবীনতর পূর্বতন