শ্রীঘ্রই শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি ফরিদ উদ্দিনের অপসারণ হতে পারে?

 

সিলেটে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের লক্ষ্য করে শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি বলেছেন, “উপাচার্যের পদত্যাগ বা তাকে সরিয়ে নেওয়ার বিষয়টি ভিন্ন। একজন উপাচার্য গেলে, আরেকজন আসবেন। কিন্তু, সমস্যা থেকে গেলে কোনো লাভ হবে না। তাই শিক্ষার্থীদের সমস্যাগুলোর সমাধান করা হবে।" গতকাল সন্ধ্যায় রাজধানীর সরকারি বাসভবনে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। 

এই সময় ডঃ দীপু মনি বলেন, “উপাচার্য থাকলেন কি থাকলেন না, সেটি কিন্তু শিক্ষার্থীদের সমস্যা সমাধানে প্রভাব ফেলছে না। উপাচার্যের বিষয়টি ভিন্ন। রাষ্ট্রপতি ও আচার্য এই দায়িত্ব ন্যস্ত করেন। আর উপাচার্যের বিষয়ে কী করা যায় তাও আমরা দেখবো।"

শিক্ষার্থীদের আন্দোলন থামিয়ে দেয়ার আহ্বান জানিয়ে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, “আমি তাদের সঙ্গে বসে সমস্যাগুলো শুনতে চাই। সেগুলোর সমাধান করতে চাই।"

আন্দোলন চলাকালে দাযেরকৃত মামলাগুলো শিক্ষার্থীদের ভবিষ্যতের ওপর কোনো প্রভাব ফেলবে না এবং মামলাগুলো তুলে নেওয়ার বিষয়েও কথা বলবেন বলে শিক্ষামন্ত্রী জানান।

বিগত বেশ কিছুদিন যাবৎ শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা উপাচার্য ফরিদ উদ্দিন আহমেদের পদত্যাগের দাবিতে আন্দোলন করে আসছেন। গত ১৯ জানুয়ারি আন্দোলরত কয়েকজন শিক্ষার্থী অনশন শুরু করেন। পরে, বুধবার সকাল ১০টা ২০ মিনিটে বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক অধ্যাপক মুহম্মদ জাফর ইকবাল এবং তাঁর সহধর্মিণী অনশনরত শিক্ষার্থীদের পানি পান করিয়ে অনশন ভাঙান।

নবীনতর পূর্বতন