ইভিএমে মিলেছে না ফিঙ্গার প্রিন্ট : সিলেটের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন


 

 আজ (৩১ জানুয়ারী) সিলেট জেলার ২৪ টি ইউনিয়নে ভোট হয়েছে। সেই ভোট দিতে উসমানী নগর থানার অন্তর্গত থানাগাও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ঐ এলাকার ভোটার বৃদ্ধা ছুরেতুন নেছা হুইল চেয়ারে চড়ে ভোট দিতে এসেছিলেন ভোট কেন্দ্রে। দীর্ঘসময় চেষ্টার করার পরও ইভিএমে ভোট দিতে করতে পারেন নি তিনি। ফিঙ্গার না মিলায় নিরাশ হয়ে ফিরে যান তিনি। পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দিতে না পারায় হতাশ ছুরেতুন নেছা।


কেবল ছুরেতুন নেছাই নয়, একই ভাবে ফিঙ্গার না মিলায় অনেকেই ভোট প্রদান করতে পারেন নি।


জানা যায়, সোমবার সকাল ৮টা থেকে ৬ষ্ঠ ধাপে সিলেটের ৫টি উপজেলার ২৪টি ইউনিয়নে শেষ মূহুর্তের ভোট গ্রহণ চলছে। এবার প্রত্যেকটি কেন্দ্রেই ইভিএমে ভোটগ্রহণের সিদ্ধান্ত নেয় বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন।


এদিকে ভোরের কুয়াশা উপেক্ষা সকল থেকেই ভোটাররা তাদের পছন্দের প্রার্থীকে ভোট প্রদানের মাধ্যমে বিজয়ী করতে কেন্দ্রে জড়ো হতে থাকেন। সবাই শান্তিপূর্ণভাবেই ভোট প্রদান করছিলেন। তবে ভোট গ্রহণে ধীরগতি থাকায় ভোট প্রদান করতে কিছু অতিরিক্ত সময় ব্যয় হচ্ছে। ফলে কেন্দ্রে ভোটারদের দীর্ঘ লাইন পরিলক্ষিত হয়। 


থানাগাও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দায়িত্বরত কর্মকর্তা জানান, শান্তিপূর্ণভাবে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হচ্ছে। তবে কয়েক জন বয়স্ক ভোটারের ফিঙ্গার মেলে নি। আমরা দীর্ঘক্ষণ চেষ্টা করেও ফিঙ্গার না মিলায় তারা ভোট প্রদান করতে পারেন নি। 


এই সমস্যা নিরসনে তাৎক্ষণিক কোনো ব্যবস্থা নিতে দেখা যায় নি। ফলে ইভিএমে ভোট দিতে এসে অনেক ভোটারই বিব্রত অবস্থায় পড়েন।

নবীনতর পূর্বতন